Image default
বাংলাদেশবিশ্বলাইফস্টাইলসিলেট

যান্ত্রিক প্রবাসী: সাবিকুন নাহার

যতক্ষণ প্রাণ যন্ত্রটা চলতে থাকে। 

                ততক্ষন প্রয়োজনের লিস্টও বেড়ে চলে ।

কথার সান্নিধ্য  পেতে চায় সকলে।

                হাজারো বৈরী জীবনের গল্প কাহিনী 

একই সুরে মিলে। 

                 সমাধানেও সম্মিলিত হই ,..

প্রবাসে আছি বলে। 

দেশের অর্থনৈতিক চাকার একটা অংশ 

                      প্রবাস নামে চলে । 

প্রবাসীদের মহত্বতায় ,…

                পরিবার ও বঞ্চিত জনগুষ্ঠী ..

জীবনের কঠিন কষাঘাত থেকে মুক্তি পায়। 

                   এতে প্রবাসীর জীবনে ,…

নিজের স্বাচ্ছন্দ  নয় ,

             বাহ্ !!বাহ্ই!!  যেন হৃদয় পরিতৃপ্ত হয়ে রয়। 

প্রবাসী,

           হাড় ভাঙা খাটুনি বিরামহীন জীবনের পথে চলে। 

প্রবাসীর অন্তর স্পর্শযুক্ত,…. ,

                        হাজারো প্রাণের কষ্ট লাগবের 

মানি সেন্ডার যন্ত্রটাই যেন কথা বলে। 

প্রবাসী ,

আত্ম তৃপ্ত ,হৃদয় উল্লাসের নীরব স্থিরযন্ত্র। 

                  চলমান জীবনের উপস্থিতিতে নয় ,

ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে সময় সীমাবদ্ধতায় ,…

                           একটি জীবন্ত ফটো ফ্রেম। 

প্রিয়জনের হাজারো ব্যস্ততায়  ,..

                          অনুপস্থিত একটি অনুভূতি। 

প্রবাসী ,

প্রচন্ড জ্বরে কেঁপে উঠা,…

                    তৃষ্ণার্ত দেহ ঘড়ি। 

নিজের প্রয়োজনটা নিজেই সম্পন্ন করি।

একজন প্রবাসী,

             নানা প্রকার দেহ ও মনোরোগের সাথে 

বসবাস করে। 

                  সময়ের  অগ্নি স্পর্শে পুড়ে যায় ,…

দেহ অন্তর আর নিঃসঙ্গ মন।  

                      ও স্পর্শ নিতে বাধ্য, পাশে নেই কেহ। 

কঠিন অগ্নি স্পর্শে স্নান করে নিঃসঙ্গ দেহ। 

প্রবাসী ,

            জ্বরে জ্বলসে যায় দেহ , প্রচন্ড মাথা ব্যথা ,

এক গ্লাস জল দাও না আমায় ,…

                      কাকে বলবো সে কথা ?

গায়ে নেই একটু বল ,…

          আছড়ে পরে বিশাল আকৃতির পরিপক্ক দেহটা। 

ক্ষুধা ,তৃষ্ণা মিটাতে হবে ,…

                  ও দেহ চট  জলদি উঠে চল। 

আহা !! প্রবাসী 

              মনো পরিপক্কতার কাছে মাঝে মাঝে ,..

দেহটাও অপরিপক্ক বিচ্ছিন্ন হয়ে দেখায়।  

                                   এই তো সে দিন ,

উঠে দাঁড়ানোর অক্ষমতায় ,…

                    আমারি মতো পরিবার ও রাষ্ট্র হতে,…

 বিচ্ছিন্ন মানব প্রাণী,.. ভাই শফিক। 

                      অনুন্বয়ে বলেছিলেন ,…

চলার স্বক্ষমতা হারিয়েছি ,..

পরিবার হতে না ফেরার ,…..

                      একটা মেসেজ পেয়েছি। 

রাষ্ট্রও নীরবতা দেখিয়েছেন।  

                   তুই নিয়ে যাবি কি আমায় ?

 চিকিৎসকের কাছে নিয়ম মাফিক। 

আমি বললাম ,

             যাবো , কিন্তু আজ আমার ছুটি নেই। 

 তবে ভয় নেই তোমার,          

                      কমলটাকে  বলে দেই। 

এই তো ,

             কিছু দিন পূর্বে কমল টাও ,..

করোনা হয়ে সর্দি কাশিতে ভুগেছিলো। 

                আমিও তাহার পাশে ছিলাম। 

আমার এমন ডাকে,…

                কমলটাও আজ সাড়া দিলো। 

এমনি হাজারো  কথা মালা ,…

                 সময় অসময়ে একে অন্যের সাথে চলা। 

আমি প্রবাসী ,

                নীরব স্থির হৃদযন্ত্রে বিশ্বাসী। 

তাইতো আজ প্রাণ খুলে বলি ,…

                    প্রবাসী আমি তোমায় ভালোবাসি। 

পৃথিবীর উজ্জ্বল দৃষ্টান্তে ,..

                       মরেও বেঁচে রবে তোমার হাসি।

Related posts

মিনুসহ বিএনপির চার নেতার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা

সংবাদ-প্রতিবেদক

দক্ষিণ আফ্রিকার করোনার ধরন বাংলাদেশে

[email protected]

যুক্তরাজ্য থেকে সিলেটে আসা ১৬৩ যাত্রী কোয়ারেন্টিনে

[email protected]

Leave a Comment